Howrah Zilla School Alumni Association

বিশ্বকাপ ফুটবল জ্বর - দ্বিতীয় কিস্তি - Howrah Zilla School Alumni Association

বিশ্বকাপ ফুটবল জ্বর - দ্বিতীয় কিস্তি

হাওড়া জিলা স্কুল, আমার দৈনন্দিনতায়, আমার চেতনায়।

23 June, 2018 Total Views: 1075
Howrah Zilla School Alumni Association: Blog

বিশ্বকাপের আরো একটা উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচ শেষে হলো যেখানে যুদ্ধটা ছিল একটি আয়োজক দেশ বনাম কোঁকড়া চুলের একটি ছেলের। একটি ছেলের ওপর একটা পুরো দেশের উচ্চাশা এবং স্বপ্নকে লালন করার গুরুদায়িত্ব। আমরা বেশির ভাগই কাল তাকেই দেখতে বসেছিলাম, হ্যাঁ, মো-সালাহ। বক্সের কাছে সন্ধানী ছুটে বেড়ানো দেখতে দেখতে হটাৎই, জাম্প-কাট টু...

... স্কুলের একটা সময় আছে যখন ঘোষিত ভাবে সবাই বড়, যেমন ধরা যাক ক্লাস টেন বা নাইন। আবার একটা সময় আছে যখন সবাই ছোট, যেমন ধরা যাক ক্লাস থ্রী বা ফোর। কিন্তু সমস্যা হলো এদের মাঝের একটা বিতর্কসংকুল, বিপজ্জনক পর্যায় নিয়ে, যখন চারপাশের কেউ কেউ বড়ো, কেউ ছোট। সেই বড়ো হবার বেশ কিছু পূর্ব-নির্দিষ্ট অনুষঙ্গ ছিল। তার মধ্যে একটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাচার ছিল ফুল-প্যান্ট। শীতকাল ছাড়া যারা ফুল-প্যান্ট পড়ার সুযোগ পাচ্ছে না তারা সমাজের চোখে ছোট, আর যারা সেই অধিকার অর্জন করেছে, তারা পেতো এক সামাজিক বিপ্লবের পুরোভাগে দাঁড়িয়ে থাকা দুঃসাহসী যোদ্ধার সম্মান। এক ঝাঁক কাকের দলে ময়ূরপুচ্ছ তাদের সে কি গর্বিত অধিষ্ঠান। প্রথমে মনে হতো এ এক দুঃসহ সামাজিক অসাম্য, তারপর যতদিনে সমাজবিজ্ঞানের দুরূহ এইসব তত্ত্বকথা বোঝার বয়স হলো যে বিপ্লবলব্ধ আঙুরফল প্রথমদিনেই সবকটি স্তরে একসঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে না, ধীরে ধীরে হয়, ততদিনে এমনিই ফুলপ্যান্টের পর্যায়ে উন্নীত হয়ে গেছি।

এবার কথা হলো, হটাৎ এইসব কথা মনে হবার কারণ কি।

কাল খেলা দেখতে দেখতে যখন চোখে পড়লো সবার মাঝে শুধু মো-সালাহর ফুলহাতা জার্সি, হটাৎ করে এই পূর্ব স্মৃতি ভেসে উঠলো, হতে পারে খুবই অপ্রাসঙ্গিক, অযাচিত, বা অ-সরলরৈখিক, কিন্তু এই তো আমাদের ইস্কুলবেলা, শৈশব সযত্নে বয়ে নিয়ে বেড়াবো বানপ্রস্থের বারাণসী পর্যন্ত। শেষ নিঃশ্বাস অবধি সমস্ত জুড়ে হাওড়া জিলা স্কুল।